মুন্সীগঞ্জে লোকসমাগম ও চলাচল বৃদ্ধি পেয়েছে

মুন্সীগঞ্জে সর্বাত্মক লকডাউনে সম্পুন্নভাবে জনসাধারণকে ঘরে রাখা যাচ্ছে না। প্রয়োজনে বা অপ্রয়োজনে ঘর থেকে বের হয়ে আসছে। মিশুক অটো চলাচল করায় লকডাউনের ৪র্থ দিনে লোকসমাগম ও চলাচল বৃদ্বি পেয়েছে। শহরের সকল দোকান পাট শপিংমল বন্ধ থাকলেও মফস্বল এলাকায় ছোট ছোট দোকান পাট আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের চোখ ফাকি দিয়ে খোলা রয়েছে। মীরকাদিম ও রিকাবীবাজার বন্দরে ব্যবসায়ীরা সারাদিন এক শাটার নামিয়ে দোকান খোলা রাখছে। মোবাইল কোট আসলে দোকানের শাটার নামিয়ে দিচ্ছে পুলিশ চলে গেলে আবার খুলে ফেলছে ।

পুলিশ শহরের মোড়ে মোড়ে অবস্থান করায় কোন যানবাহন চলাচল করেনি। ২১ জন নির্বাহী ম্যাজিষ্টেটের এর নেতৃত্বে জেলায় ২১টি ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালিত হচ্ছে। লকডাউনের বিধি নিষেধ অমান্য করায় ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্বে ৮২টি মামলায় সর্বমোট ৫৪ হাজার ৭শত টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। কঠোর লকডাউন বাস্তবায়নে পুলিশের পাশাপাশি ৩ প্লাটুন সেনাবাহিনী ২ প্লাটুন বিজিবি কাজ করছে।ধলেশ্বরী নদীতে মুক্তারপুর সেতুর নীচে নৌপুলিশ ব্যারিকেট দিয়ে নৌচলাচল নিয়ন্ত্রণ করছে।

ইনকিলাব

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.