মুন্সীগঞ্জে দক্ষ জনশক্তি তৈরির দুয়ার খুলছে ॥ টিটিসি চালু হচ্ছে সেপ্টেম্বরে

মুন্সীগঞ্জে টেকনিক্যাল ট্রেনিং সেন্টার(টিটিসি) চালু হচ্ছে সেপ্টম্বরে। মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার কেওয়ারের লোহারপুলের কাছে এই কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রটি নির্মাণ হয়েছে। এখানে ছয়টি ট্রেডে ৩০০ জন প্রশিক্ষণ গ্রহণ করতে পারবেন। ৪০ নারীর আবাসিক সুবিধাসহ এই কেন্দ্রে বিদেশে চাহিদার সব রকম কারিগরি ট্রেডেই প্রশিক্ষণের সুযোগ থাকছে। রয়েছে তিন মাস থেকে ছয় মাসের প্রশিক্ষণ। প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রনালয়ের আওতায় মুন্সীগঞ্জে এই প্রথম কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র নির্মাণ হলো। মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলায় এই সেন্টারটি চালু হচ্ছে। সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন পর্যায়ক্রমে জেলার বাকী ৫ উপজেলায়ও এই কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র নির্মাণ হবে। টিটিসি তৈরী হওয়ায় পুরো এলাকাটির চেহারা বদলে গেছে।

দক্ষ জনশক্তি তৈরি করতে উপজেলা পর্যায়ে ৪০টি কারিগরি প্রশিক্ষণ হচ্ছে। কেন্দ্র চালু হলে প্রতি বছর নারীসহ ৪৬ হাজার দক্ষ জনবল তৈরি হবে। এতে বিদেশে জনবল প্রেরণে নতুন দুয়ার খুলে যাবে। কর্তৃপক্ষ বলছে, আগামী সেপ্টেম্বরে ১৪টি এবং জুনে বাকীগুলো চালু হবে। নান্দনিক নির্মাণ শৈলীর এই স্থাপনা তৈরি হয়ে আছে বছরাধিকাল। গ্রামীণ পরিবেশে ভবনটি ঘিরে তৈরী হয়েছে কৌতুহল।

একযোগ ৪০টি উপজেলায় নির্মাণাধীন এমন প্রশিক্ষণ কেন্দ্র থেকে প্রতি বছর ৪৬ হাজার দক্ষ জনশক্তি তৈরী হবে। বিদেশেও সম্মানজনক কাজে যেতে পারবেন প্রশিক্ষিতরা। ইলেক্ট্রিকেল, ইলক্ট্রোনিক্স, আইটি সাপোর্ট টেকনিশিয়ান, গার্মেন্টস, মেশিন টুলস কোপারেশন, সিভিল কন্সট্রাকশন, ওয়েল্ডিং এন্ড ফেব্রিকেশনস, রি-ফ্রিজারটের অন্ড এয়ার কন্ডিশনিং, অটো ড্রাইভিং ও হাউস কিপিং। এই ১০ ট্রেডের এলাকার উপযোগিতা অনুযায়ী প্রতিটিতে ছয় ট্রেডে প্রশিক্ষণ হবে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, লক্ষ্যে পৌঁছাতে অবকাঠামো সম্পন্ন করার পাশাপাশি দ্রুত জনবল নিয়োগ দরকার। সরকারের সময়োপযোগী সিদ্ধান্তে খুশি সাধারণ।

৪০ টিটিসি ও একটি আইএমটি স্থাপন প্রকল্প উপ প্রকল্প পরিচালক আলী মর্তুজা জানান, দেশের ৩২ জেলায় ১৬৬৭ কোটি ৭ লাখ টাকা ব্যয়ে ৪০টি কেন্দ্র এবং চট্রগ্রামে একটি ইনস্টিটিউট অব মেরিন টেকনোলজির নির্মাণ চলছে । পুরো প্রকল্পের অগ্রগতি ৬৭ শতাংশ। মুন্সীগঞ্জসহ ১৪টি কেন্দ্র উদ্বোধন হবে সেপ্টেম্বরে।বাকীসব সম্পন্ন হবে ২০২২ সালের জুনের মধ্যে। মুন্সীগঞ্জের কেন্দ্রটি এখন চালুর অপেক্ষায়।

মুন্সীগঞ্জ গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী রাশেদ আহসান জানান, মুন্সীগঞ্জের টিটিসির অগ্রগতি ৯৫ শতাংশ। এখন শুধু প্রাচীরের কাজ চলছে। দেড় একর জমির উপর ৩৮ কোটি ৩২ লাখ টাকায় মুন্সীগঞ্জের কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রটি নির্মাণের একেবারে শেষ পর্যায়ে এখন।

জনকন্ঠ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.