মেয়ের লাশ ফ্রিজিং গাড়িতে রেখে পাহারায় পরিবার

মুন্সিগঞ্জের টঙ্গিবাড়ী উপজেলার কাইচাইল গ্রামে ঘরের আড়ার সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে সানজিদা ‌(২০) নামের এক তরুণী। রোববার (১২ ডিসেম্বর) রাতে স্বামীর সঙ্গে ঘুমিয়ে ছিলেন সানজিদা। সকালে ঘরের আড়ার সঙ্গে তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়। একমাত্র মেয়ের মৃত্যু কিছুতেই মেনে নিতে পারছে না মালয়েশিয়া প্রবাসী বাবা। মেয়েকে শেষবারের মতো দেখতে ছুটে আসছেন দেশে।

বাবার অপেক্ষায় মেয়েকে রেখে দেওয়া হয়েছে ফ্রিজিং গাড়িতে। বাবা মালয়েশিয়া থেকে ফিরলে মেয়ের মৃত্যুর কারণ খুঁজে তারপর দাফন করা হবে। এমনটি জানিয়েছেন নিহত সানজিদার মা সাহিদা বেগম। স্থানীয়রা জানান, সানজিদার লাশ সোমবার সন্ধ্যা ৫টার দিকে পুলিশ তার স্বজনদের বুঝিয়ে দিলে ৬টার দিকে ঢাকা থেকে ফ্রিজিং গাড়ি আনা হয়। পরে সানজিদার বাড়ির প্রায় ৫০০ গজ দূরে কাইচাইল চৌকিদার পাড়া জামে মসজিদের সামনে রাস্তায় গাড়িতে সানজিদার লাশ রেখে পাহারা দিচ্ছে পরিবার। বুধবার (১৫ ডিসেম্বর) রাত ৩টার দিকে সানজিদার বাবা সাইদ শেখ মালয়েশিয়া থেকে ঢাকা শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করার কথা রয়েছে। বাবা বাড়িতে না ফেরা পর্যন্ত লাশ থাকবে ওই ফ্রিজিং গাড়িতেই।

মাত্র সাত মাস আগে একই গ্রামের শাহজাহান বেপারীর ছেলে সাহারিয়ার রাতুলের সঙ্গে প্রেম করে বিয়ে হয় সানজিদার। রোববার রাতে স্বামী রাতুলের সঙ্গে একই বিছানায় ঘুমিয়েছিলেন সানজিদা। সোমবার সকালে সানজিদাকে ঘরের আড়ার সঙ্গে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায় স্বামী ও শাশুড়ি। তারা লাশ নামিয়ে খাটের ওপর রেখে এলাকাবাসীকে খবর দেয়। এলাকাবাসী পুলিশে খবর দিলে তারা লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

নিহতের মা সাহিদা বেগম বলেন, আমার মেয়ে ওই ছেলেকে পছন্দ করায় আমি পরিবারের সবাইকে বুঝিয়ে ওই ছেলের সঙ্গে আমার মেয়েকে কোরবানির ঈদের এক সপ্তাহ আগে বিয়ে দেই। আমার মেয়ে কীভাবে মারা গেছে আমি কিছু বলতে পারি না। তাই ওর বাবা বলছে, ওর লাশ রেখে দিতে। আমরা ঢাকা থেকে গাড়ি এনে ওর লাশ রেখে দিয়েছি। ওর বাবা মালয়েশিয়া থেকে আসার পর যা করার করবে।

টঙ্গিবাড়ী থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোল্লা সোয়েব আলী বলেন, মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত শেষে স্বজনদের বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে টঙ্গিবাড়ী থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা রেকর্ড করা হয়েছে।

বিডি২৪লাইভ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.