স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থককে জবাই করে জীবন কেড়ে নেয়ার চেষ্টা

নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এরমধ্যে বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় উপজেলার হোসেন্দী ইউনিয়নের গোয়ালগাঁও গ্রামে সদ্য নির্বাচিত চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থককে জবাই করে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে ইউনিয়নটি থেকে পরাজিত আওয়ামী লীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী মনিরুল হক মিঠুর সমর্থকদের বিরুদ্ধে।

এ ঘটনায় গুরুতর আহত অবস্থায় আমান উল্লাহ (৫০) নামে এক আক্তার হোসেন সমর্থককে ঢাকা মেডিকেল কলেজে পাঠানো হয়েছে। আহত আমান উল্লাহ গোয়ালগাঁও গ্রামের মৃত আনোয়ার আলীর ছেলে। এদিকে, ঘটনার সাথে জড়িত থাকার সন্দেহে ইব্রাহিম (৩৫) নামে এক জনকে আটক করেছে পুলিশ।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী আহত আমান উল্লাহ ছেলে শাহ আলম বলেন, তার বাবা হোসেন্দী ইউনিয়ন থেকে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান প্রার্থী কাজী আক্তার হোসেন এর কর্মী ছিলেন। গতকাল নির্বাচনে আক্তার হোসেন বিজয়ী হওয়ায় তিনি আক্তার হোসেনকে শুভেচ্ছা জানাতেও গিয়েছিলেন। তবে পরাজয়ের পর থেকে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী মনিরুল হক মিঠুর সমর্থকরা।

এদিকে, আজ সকাল ১০টার দেখে মিঠু সমর্থকরা হামলা চালায় তাদের বাড়িতে। তার বাবা দৌঁড়ে তার চাচার বাড়িতে ঢুকে বাঁচার চেষ্টা করলেও তা পারেননি। সন্ত্রাসীরা সেখানে ঢুকেই এলোপাতাড়িভাবে কুপিয়ে তার গলা কেটে তাকে রেখে যায়। তার গলায়, ঘাড়ে, পেটে সহ শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

সদ্য নির্বাচিত চেয়ারম্যান হাজী আক্তার হোসেন বলেন, আমান উল্লাহ তার একনিষ্ঠ কর্মী ছিল। শুধু তার পক্ষে নির্বাচন করায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী মনিরুল হক মিঠুর সমর্থকরা তাকে জবাই করে হত্যা করতে চেয়েছে। এ ঘটনায় আতঙ্ক এবং চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে সাধারণ ভোটারদের মধ্যে। দ্রুত সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন তিনি।

অভিযুক্ত মনিরুল হক মিঠু বলেন, তিনি নির্বাচনে হেরেছেন ঠিকই তবে কোনো রকম সহিংসতা করার ইচ্ছা তার নেই। ফলাফল তিনি মেনে নিয়েছেন। তিনি বা তার কোনো কর্মী এ ঘটনার সাথে জড়িত নয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিজয়ী প্রার্থী আক্তার হোসেন রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের জন্য নিজস্ব লোকের মাধ্যমে এ কাজ করেছে।

গজারিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ রইছ উদ্দিন বলেন, এ ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে একজনকে আটক করা হয়েছে। বাকিদের আটকের তাদের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। পরে বিস্তারিত জানানো হবে।

বিডি২৪লাইভ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.