ঢাকা-মাওয়া এক্সপ্রেসওয়েতে যাত্রী হয়রানীর প্রতিবাদে শ্রীনগরে পথসভা ও মানববন্ধন

আরিফ হোসেনঃ ঢাকা-মাওয়া এক্সপ্রেসওয়েতে মুন্সীগঞ্জের ৩ উপজেলার যাত্রীদের সাথে বাসমালিকদের সেচ্ছাচারিতার প্রতিবাদে পথসভা ও মানববন্ধন করেছে যাত্রী কল্যাণ পরিষদ। শুক্রবার সকাল ১০ টায় শ্রীনগর প্রেস ক্লাবের সামনে এই কর্মসূচী পালিত হয়। পরে ১০ দফা দাবী সংবলিত স্মারক লিপি শ্রীনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

শ্রীনগর প্রেস ক্লাবের সামনে অনুষ্ঠিত কর্মসূচীতে বিভিন্ন দলের রাজনৈতিক নেতৃ বৃন্দ,ডাক্তার,প্রকৌশলী,আইনজীবী,সাংবাদিক,শিক্ষক,চাকুরিজীবি,ছাত্র,ব্যবসায়ী সহ নানা শ্রেণী পেশার মানুষ উপস্থিত থেকে যাত্রী হয়রানী রোধে নিজেদের দাবী তুলে ধরেন। এসময় বক্তারা বলেন, পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পর ঢাকা-মাওয়া এক্সপ্রেসওয়েতে পরিবহন মালিকদের সেচ্ছাচারিতার কারণে মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান, শ্রীনগর ও লৌহজং উপজেলার মানুষ এখন চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। ঢাকা-মাওয়া রুটে চলাচলকারী বেশীর ভাগ বাস কোম্পানীর পরিবহনগুলো এখন ঢাকা-ভাংগা ও ভাংগা-ঢাকা রুটে চলাচল করায় ঢাকা-মাওয়া আংশের কোন বাসস্ট্যান্ড থেকে তারা যাত্রী উঠাচ্ছেনা এবং নামাচ্ছে না। এমনকি ঢাকা থেকে মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান-শ্রীনগর ও লৌহজং উপজেলার কোন যাত্রী তুলছেনা। কেউ উঠে পরলে ঢাকা-ভাংগা রুটের ভাড়া গুনতে হচ্ছে ।

বক্তারা আরো বলেন, আমাদের জমি-জমা,বাপ দাদার ভিটা ভাড়ি, ঘর নিয়ে সরকার এক্সপ্রেসওয়ে ও রেল লাইন করেছে। আর আমরাই এখন এই রাস্তায় চলাচল করতে পারছি না। বাস মালিকদের কারনে সরকারের সফলতা নিয়ে এই অঞ্চলের মানুষদের মধ্যে বিরুপ ধারণা তৈরি হচ্ছে।

যাত্রী কল্যান সমিতির সদস্য সচিব শ্রীনগর উপজেলা সেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পাটাভোগ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হামিদুল্লাহ খান মুন বলেন, রুট পারমিট না নিয়ে ঢাকা-মাওয়ার বাস ৩ উপজেলার যাত্রী না তুলে পদ্মা সেতু পার হয়ে ভাংগা চলে যাচ্ছে। এতে প্রতিদিনই দুর্ভোগে পরছে এই অঞ্চলের হাজার হাজার যাত্রী।

যাত্রী কল্যাণ পরিষদের আহবায়ক শ্রীনগর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ওয়াহিদুর রহমান জিঠু বলেন, শ্রীনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসকের বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে। আগামী ১ সপ্তাহের মধ্যে এর কোন সুরাহা না করলে আমরা কঠোর অন্দোলনে যেতে বাধ্য হব।

পথসভায় বক্তব্য রাখেন, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক উপকমিটির সদস্য মাকসুদ আলম ডাবলু, আইন বিষয়ক উপকমিটির সদস্য ব্যারিস্টার শিমুল কিবরিয়া, শ্রীনগর উপজেলার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফোরামের সদস্য সচিব জিএস নাজির হোসেন, শ্রীনগর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি আমজাদ হোসেন, আরাম পরিবহনের চেয়ারম্যান শাহে আলম, বিকল্পধারা শ্রীনগর উপজেলার যুগ্ন আহবায়ক জাহাঙ্গীর আলম নিশি, শিক্ষক আব্দুল লতিফ, ডাঃ রাশেদুল হাসান, শ্রীনগর প্রেস ক্লাবের সিনিয়র সহ সভাপতি মোঃ আরিফ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রয়েল, আওয়ামী লীগ নেতা মিনহাজ উদ্দিন,নজরুল ইসলাম তালুকদার মালুম, প্রকৌশলী তানভীর আরাফাত, শ্রীনগর উপজেলা ছাত্র লীগের সভাপতি শাওন খান, ছাত্রদলের সভাপতি আরমান হোসেন লিমন, কোলাপাড়া ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা আতাহার হোসেন, পাটাভোগ ইউনিয়ন পরিষদের নারী সদস্য বিনা বেগম প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.