বিক্রমপুরের জুবায়ের এখন অ্যামাজনের সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার

বিশ্বখ্যাত প্রতিষ্ঠান অ্যামাজন ওয়েব সার্ভিসেস-এ সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে যোগ দিয়েছেন বিক্রমপুরের তরুণ ড. জুবায়ের হোসেন পান্থ। যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটনে বসবাস করছেন তিনি। সেখানেই কর্মস্থল। গত জানুয়ারিতে তিনি অ্যামাজনে যোগ দেন। এর আগে তিনি কাজ করেছেন ইনটেল করপোরেশনে।

জুবায়েরের বাবা মোফাজ্জল হোসেন ইন্সটিটিউট অব কস্ট অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট অ্যাকাউন্ট্যান্ট অব বাংলাদেশ (আইসিএমএবি)-এর সাবেক পরিচালক। তাদের বাড়ি মুন্সীগঞ্জ জেলা সদরের কোর্টগাঁওয়ে। তবে বোন অর্থি ও বাবা মায়ের সাথে থাকতেন নয়াপল্টনে। আর জুবায়ের ছিলেন ঢাকার উদয়ন স্কুলের ছাত্র।

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) থেকে ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিকস ইঞ্জিনিয়ারিং স্নাতক (সম্মান) ডিগ্রি লাভের পর জুবায়ের যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব আরকানাসাস এ কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং এ মাস্টার্স করেন। পরে ফ্লোরিডা বিশ্ববিদ্যালয়ে থেকে গেলবছরের ডিসেম্বরে কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং এ ডক্টরেট ডিগ্রি লাভ করেন।

জুবায়ের বলেন, ‘বাবা মায়ের স্বপ্ন পূরণ করতে পেরে আমি খুবই আনন্দিত। বিশ্বের সবচেয়ে নামী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডক্টরেট ডিগ্রি আমার জীবনের সেরা প্রাপ্তি।’

অ্যামাজনে চাকরি পাওয়ার পর অনুভূতি প্রকাশ করে বলেন, ‘আমার ইচ্ছা ছিল বিশ্বের সবচেয়ে বড় সফটওয়্যার কোম্পানিগুলোতে চাকরি করার। আল্লাহ আমার ইচ্ছা পূরণ করেছেন। অ্যামাজন বিশ্বের পাঁচটি বড় কোম্পানির একটি। সেখানে চাকরি পাওয়া সত্যিই আনন্দের।’

জুবায়েরের বাবা মোফাজ্জল হোসেন বলেন, ‘ফ্লোরিডা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন একেবারেই ভিন্ন এক আয়োজন। আমরা সেখানে উপস্থিত ছিলাম। ডক্টরেট ডিগ্রি প্রদানের সময় ছেলের নাম ঘোষণার সাথে সাথে পর্দায় ছবিও ভেসে ওঠে। এসময় চারপাশ থেকে সবার করতালির শব্দে আমরা বাবা-মা দুজনই আনন্দাশ্রু সংবরণ করতে পারিনি। এ যে কি অনভূতি তা ভাষায় প্রকাশ করতে পারব না। ছেলে পরবর্তীতে বিশ্বখ্যাত প্রতিষ্ঠানে চাকরি পেয়েছে। আমরা গর্বিত।’

ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.